কাকতালীয় দোষ

                                          কাকতালীয় দোষ 

কাকতালীয় দোষ
কাকতালীয় দোষ



কাকতালীয় দোষ :- কারন  হল কার্যের পূর্বগামী এবং কার্য হল কারনের অনুগামী ঘটনা। কিন্তু যে-কোনো পূর্বগামী ঘটনাকে কারণ হিসেবে গ্রহণ করলে যুক্তিতে যে দোষের উদ্ভব হয় , তাকে বলা হয় "কাকতালীয় দোষ"

যেমন :- হাঁচি পড়ার ঠিক পরেই দুর্ঘনাটি ঘটেছে , তাই হাঁচি পড়াই দুর্ঘটনার কারণ বলে অনুমান করা হল কাকতালীয় দোষ।

                                                         মন্দ উপমাযুক্তি

মন্দ উপমাযুক্তি :-  দুই বা ততোধিক বস্তুর মধ্যে কয়েকটি বিষয়ে সাদৃশ্য দেখে এবং সেই সাদৃশ্যের ভিত্তিতে যখন তাদের মধ্যে অপর কোনো নতুন সাদৃশ্যের অস্তিত্ব অনুমান করা হয় , তখন তাকে বলা হয় মন্দ উপমাযুক্তি 

যেমন :- পৃথিবী ও মঙ্গল উভয়েই গ্রহ। উভয় গ্রহেই মাটি , জল , তাপ আছে। পৃথিবীতে প্রাণ আছে। সুতরাং , মঙ্গলেও প্রাণ আছে।

                                                    অবৈধ সামান্যিকরণ দোষ

অবৈধ সামান্যিকরণ দোষ :-লৌকিক আরোহের ক্ষেত্রে কার্যকারণ সম্পর্কের উপর নির্ভর না করে বা কার্যকারণ সম্পর্কে আবিষ্কারের চেষ্টা না করে কেবলমাত্র অবাধ অভিজ্ঞতার ভিত্তিতে দ্রুত সামান্যিকরণ করা হয়। এর ফলে যুক্তিতে যে দোষ ঘটে তাকে বলা হয়  "অবৈধ সামান্যিকরণ দোষ"

যেমন :- কয়েকজন মানুষ শিক্ষিত জেনে যদি বলা হয় - সব মানুষ শিক্ষিত , তাহলে অবৈধ সামান্যিকারণ দোষ হবে। 
Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url