সত্যাপেক্ষক M.C.Q+S.A.Q

 সত্যাপেক্ষক M.C.Q+S.A.Q

 

১) গ্রাহক কি ?

Ans:- যে বর্ণপ্রতীকের স্থানে আমরা যে-কোনো পদ বা বচন বসাতে পারি, তাকে গ্রাহক বা গ্রাহক প্রতিক বলা হয়|

যেমন :-(i) সকল S হয় P |             (ii) যদি p তবে q |

                                   

                সকল মানুষ হয় মরনশীল |        যদি মেঘ করে তবে বৃষ্টি হবে |

 

২) গ্রাহক কয় প্রকার ও কি কি ?

Ans:- গ্রাহক দু-প্রকার হয় | যথা :- i)পদ-গ্রাহক এবং ii)বচন-গ্রাহক


৩) পদ-গ্রাহক কি ?

Ans:- যখন কোনো বর্ণপ্রতীকের স্থানে কোনো পদ বসানো হয়, তখন তাকে পদ-গ্রাহক বলা হয় |

যেমন :-(i)  সকল S হয় P |          

                                         

                    সকল মানুষ হয় মরনশীল |


৪) বচন-গ্রাহক কি?

Ans:- কোনো বর্ণপ্রতীকের স্থানে কোনো বচন বসানো হয়, তখন তাকে বচন-গ্রাহক বলা হয় |

   যেমন:-(i)     যদি p তবে q |

                                        

 

                  যদি মেঘ করে তবে বৃষ্টি হবে |

 


৫) ধ্রুবক কি?(স্থায়ী সংকেত)

Ans:-যুক্তি বা বচনের যেসব প্রতীক অপরিবর্তনীয় বা যাদের পরিবর্তন করা যায় না, তাদের ধ্রুবক  বলে|

যেমন:- . q  ; p V q ; p  q  ; p    q



৬) চলক কি?(অস্থায়ী সংকেত)

Ans:- যুক্তি বা বচনের যেসব প্রতীক পরিবর্তনীয় বা যাদের পরিবর্তন করা যায়, তাদের চলক বলে|

 

         যেমন :-(i) সকল S হয় P |             (ii) যদি p তবে q |

                                                                                      

                        সকল মানুষ হয় মরনশীল |      যদি মেঘ করে তবে বৃষ্টি হবে |


৭) অঙ্গ বা অঙ্গবাক্য কি ?

Ans:- কোনো যৌগিক বচনের অন্তর্ভুক্ত বচনকে ওই যৌগিক বচনের অঙ্গ বলা হয় |

যেমন :- রাম বুদ্ধিমান এবং শ্যাম বুদ্ধিমান 

 


৮) সত্যসারনির নির্দেশক স্তম্ভ কাকে বলে ?

 Ans:- সত্যসারনির অঙ্গবচনগুলি নিয়ে যে সকল স্তম্ভে গড়ে ওঠে , তাদের বলা হয় নির্দেশক স্তম্ভ |

যেমন :- নির্দেশক স্তম্ভ 

                 

p

q

p.q

T

T

T

T

F

F

F

T

F

F

F

F

 

 

 

 

 

 

 

৯) ফলস্তম্ভ বলতে কী বোঝ ?

  Ans:- সত্যসারনির যে স্তম্ভটি থেকে বচনের সত্যমূল্য নির্ধারন করা যায় তাকে ফলস্তম্ভ বলা হয় |

   যেমন :-            ফলস্তম্ভ (মূল স্তম্ভ)

                                         

p

q

p.q

T

T

T

T

F

F

F

T

F

F

F

F

 

 

 

 

 

 

 

 

 

১০)সত্যাপেক্ষ বচন কয় প্রকার ও কি কি ?

Ans:- সত্যাপেক্ষ বচন পাঁচ প্রকার| যথা:- i)নিষেধক বচন ii)সংযৌগিক বচন  iii)বৈকল্পিক বচন iv)প্রাকল্পিক বচন এবং v)দ্বিপ্রাকল্পিক বচন



১১) নিষেধক বচন কি ?

Ans:- যে বচন একটি নঞর্থক বা না-বাচক শব্দ(না , নয় , এমন নয় প্রভৃতি)দ্বারা গঠিত , তাকেই নঞর্থক বা নিষেধক বচন বলে |যথা :- না , নয় , এমন নয় প্রভৃতি

যেমন :- চাঁদ উঠেছে   P

    এমন নয় যে চাঁদ উঠেছে |  ~ P



১২) সংযৌগিক বচন  কি ?

Ans:- যে যৌগিক বচনের অঙ্গবাক্য এবং” ,“কিন্তু” ,“” , “আরএই জাতীয় শব্দ দ্বারা যুক্ত থাকে তাকে সংযৌগিক বচন বলে |যথা :- “এবং” ,“কিন্তু” ,“” , “আরইত্যাদি |

যেমন :-i) রাম আসবে এবং শ্যাম আসবে | ii) রিঙ্কু আর টিঙ্কু স্কুলে যাবে |



১৩) বৈকল্পিক বচন কি ?

Ans:- “হয়-অথবাইত্যাদি শব্দ দিয়ে গঠিত যৌগিক বচনকে বৈকল্পিক বচন বলে |

যেমন :- হয় রাম আসবে অথবা শ্যাম আসবে |



১৪) প্রাকল্পিক বচন কি ?

Ans:- “যদি-তবেশব্দ দিয়ে গঠিত যৌগিক বচনকে প্রাকল্পিক বচন বলে |

যেমন :- যদি মেঘ করে তবে বৃষ্টি হবে |



১৫) দ্বিপ্রাকল্পিক বচন কি ?

Ans:- “যদি এবং কেবল যদিশব্দ দিয়ে গঠিত যৌগিক বচনকে দ্বিপ্রাকল্পিক বচন বলে |

যেমন :- বৃষ্টি হবে যদি এবং কেবল যদি মেঘ করে 

যদি তোমাদের এগুলো ভালো লাগে তাহলে কোমান্ড কর আর শেয়ার কর। তাহলে আমি আরও লিখব তোমাদের জন্য ।


ধন্যবাদ
Next Post Previous Post
3 Comments
  • Sutapa Ghosh
    Sutapa Ghosh January 6, 2021 at 5:22 PM

    Thank you

  • Unknown
    Unknown March 22, 2021 at 7:45 AM

    Very helpful

  • Unknown
    Unknown March 22, 2021 at 7:46 AM

    Very helpful

Add Comment
comment url